করোনার অজুহাতে প্রকল্পের কাজে শৈথিল্যের সুযোগ নেই : প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

জাতীয়

র‌্যাডিকাল নিউজ ২৪ ডেস্ক: করোনার অজুহাতে প্রকল্পের কাজে শৈথিল্য দেখানোর সুযোগ নেই বলে মন্তব্য করেছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম। তিনি বলেন, প্রকল্প বাস্তবায়নে আন্তরিকতা, একাগ্রতা, সততা ও আত্মনিয়োজনের পাশাপাশি দেশপ্রেম অপরিহার্য।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অবিরাম পরিশ্রম করে করেনাকালেও বাংলাদেশকে বড় বড় অনেক রাষ্ট্রের চেয়ে ভালো অবস্থানে নিয়ে গেছেন। সে জায়গা আপনাদের ধারণ করতে হবে। রাষ্ট্রের জনগণকে কতটা সেবা দিচ্ছেন, এটা মনে রাখতে হবে।

আজ রবিবার রাজধানীর ফার্মগেটে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের সম্মেলন কক্ষে ২০২০-২১ অর্থবছরে সংশোধিত বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে অন্তর্ভুক্ত প্রকল্পসমূহের অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে এ কথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, প্রকল্প সংশ্লিষ্টদের কোন নেতিবাচক কর্মকাণ্ডের দায় মন্ত্রণালয় বহন করবে না। প্রকল্প সংশ্লিষ্ট সকল অনুশাসন যথাযথভাবে প্রতিপালন করতে হবে। প্রাণিসম্পদ খাতে জীবন্ত উপাদান নিয়ে আমাদের কার্যক্রম পরিচালনা করতে হয়। এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

তাই প্রকল্পের কাজে মন্থর গতি ও মনিটরিং ঘাটতি কোনভাবেই কাম্য নয়। প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়নে শৃঙ্খলা ও কাজের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে হবে। প্রকল্পের ক্রয় কাজে যথাযথভাবে পিপিআর অনুসরণের কথা প্রকল্প পরিচালকদের কেন বারবার স্মরণ করে দিতে হবে? কাজ সম্পাদন ব্যতীত কোনভাবেই প্রকল্পের অর্থ ব্যয় করা যাবে না।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদ, অতিরিক্ত সচিব মো. তৌফিকুল আরিফ, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডা. শেখ আজিজুর রহমান, বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. মো. আবদুল জলিল, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব মো. আব্দুল মতিনসহ পরিকল্পনা শাখার কর্মকর্তাগণ ও সংশ্লিষ্ট প্রকল্প পরিচালকগণ এবং পরিকল্পনা কমিশন ও আইএমইডি এর প্রতিনিধিগণ সভায় অংশগ্রহণ করেন।

সভায় ২০২০-২১ অর্থবছরের সংশোধিত বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে অন্তর্ভুক্ত মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রাণিসম্পদ উপখাতে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন ১৯টি, বাংলাদেশ ভেটেরিনারি কাউন্সিল কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন ১টি এবং বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউট কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন ৭টিসহ মোট ২৭টি প্রকল্পের এপ্রিল, ২০২১ পর্যন্ত বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যালোচনা করা হয়। এ প্রকল্পসমূহের এপ্রিল, ২০২১ পর্যন্ত আর্থিক অগ্রগতি ৫৫.৯৫ শতাংশ, যেখানে জাতীয় গড় অগ্রগতি ৪৯.০৯ শতাংশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *