আইপিএল বন্ধের পর বিস্ফোরক তথ্য ফাঁস

খেলাধুলা

র‌্যাডিকাল নিউজ ২৪ ডেস্ক: করোনা সংক্রমণের মধ্যেই আর্থিক লোকসান এড়াতে বাড়তি ঝুঁকি নিয়ে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) আয়োজন করে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই)।

কিন্তু টুর্নামেন্টের মাঝপথে গিয়ে বিভিন্ন ফ্র্যাঞ্চাইজিতে করোনা সংক্রমিত হওয়ায় আইপিএল বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয় বিসিসিআই।

বিশ্বের এই জনপ্রিয় টুর্নামেন্টটি মাঝ পথে গিয়ে বন্ধ হয়ে যাওয়ায় প্রায় তিন হাজার কোটি টাকা লোকসানের মুখে বিসিসিআই।

আইপিএল বন্ধ হওয়ার পর থেকেই প্রতিনিয়ত বিস্ফোরক তথ্য ফাঁস হচ্ছে। অনেকেই বলছেন ভারতীয় ক্রিকেটারদের জন্যই বায়ো-বাবলে থেকেও করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ক্রিকেটাররা।

টাইমস অফ ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আইপিএল শুরুর আগেই ক্রিকেটারদের করোনার টিকা দেওয়ার চেষ্টা করেছিল ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। সেই সময় অধিকাংশ ক্রিকেটারই টিকার পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার কথা ভেবে টিকা নিতে চাননি। সেই প্রতিবেদনেই জানানো হয়েছে, বিদেশি ক্রিকেটাররা যেখানে টিকা নিতে অসম্মত হননি, সেখানে ভারতীয় ক্রিকেটারদের ক্ষেত্রে টিকার কার্যকারিতা নিয়ে সন্দেহ ছিল।

বোর্ডের একটি সূত্র টাইমস অফ ইন্ডিয়াকে জানিয়েছে, প্রথমবার টিকার প্রস্তাবে ক্রিকেটাররা সরাসরি না করে দিয়েছিলেন। এটা অবশ্য ওদের ভুল ছিল না। সচেতনতার অভাব ছিল। ক্রিকেটাররা ভাবছিল বায়ো বাবল-ই তাদের নিরাপত্তা দিতে সক্ষম। টিকা নেওয়ার প্রয়োজনীয়তা নেই। ফ্র্যাঞ্চাইজিরাও ক্রিকেটারদের বোঝাতে পারেনি। তারপরই পুরো ঘটনা নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গিয়েছিল।

আইপিএল ১৪তম আসরের এখনো ৩১টি ম্যাচ বাকি আছে। চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে বাকি ম্যাচ সম্পন্ন করতে চায় বিসিসিআই। না হয় ৩ হাজার কোটি টাকা লোকসানে পড়বে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *